৭:৫৫ এএম, ১৯ জুন ২০২৪, বুধবার | | ১২ জ্বিলহজ্জ ১৪৪৫




মোমবাতির বিজয় হলে পটিয়াকে জেলায় বাস্তবায়ন করব : এম এ মতিন

২৬ ডিসেম্বর ২০২৩, ১০:০৯ এএম |


প্রেস বিজ্ঞপ্তি : দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে চট্টগ্রাম-১২ (পটিয়া) আসনে বাংলাদেশ ইসলামী ফ্রন্ট মনোনীত পদপ্রার্থী আলহাজ¦ মাওলানা এম.এ. মতিন সোমবার (২৫ ডিসেম্বর) সোমবার দুপুরে পটিয় কার্যালয় থেকে শুরু করে উপজেলা চত্বর, মুন্সেফ বাজার, পোস্ট অফিস মোড়, আদালত রোড, ছবুর রোড, থানার মোড়, বাস স্টেশন, শাহচাঁন্দ আউলিয়া মাদ্রাসা গেইট, বাহুলী ছিপাতলী স্কুল, আমির ভান্ডার দরবার শরীফ সংলগ্ন রোড, রেল স্টেশন, তালতলী ছৌকি ও থানার হাট ক্লাব রোড সহ পটিয়ার পৌর সদরের অলি-গলিতে ব্যাপক গণসংযোগ করেন।   এ সময় বাংলাদেশ ইসলামী ফ্রন্ট পটিয়া উপজেলা পূর্ব পরিষদের সভাপতি মাওলানা এয়ার মুহাম্মদ পেয়ারু সভাপতিত্বে পটিয়া থানার মোড় চত্বরে এসে এক পথসভায় তিনি বলেন, বৃটিশ আমল থেকে দক্ষিণ চট্টলার ঐতিহ্যবাহী এই পটিয়া অনেক ঐতিহ্য বহন করে আসছে।  এই পটিয়াতে আব্দুল করিম সাহিত্য বিশারদ সৈয়দ আমিরুজ্জামান শাহ (রহ.) বৃটিশ বিরোধী আন্দোলনের সিপাহ সালাহর আল্লামা নুরুল হক শাহ রহ. প্রীতিলতা ওয়াদ্দাদাসহ দেশ বিখ্যাত অনেক গুনীজনের স্মৃতি বিজড়িত এই পটিয়া।  এই পটিয়ার জনগণ দেশের সর্বোচ্চ বিভিন্ন মন্ত্রণালয়ে দেশ ও জনগণের সেবা দিয়ে যাচ্ছেন।  এই পটিয়া হলো সাবেক মহুকুমা।  কিন্তু দুঃখজনক হলেও সত্য যে গোটা বাংলাদেশে সকল মহুকুমা জেলায় রুপান্তর করা হলেও এই পটিয়া তার প্রাপ্তি থেকে বৈষম্যের স্বীকার হয়েছে।  উত্তর চট্টগ্রামে সরকারি অনেক পাবলিক বিশ^বিদ্যালয় থাকলেও দক্ষিণ চট্টগ্রামের মানুষ তা থেকে বঞ্চিত।   এম.এ. মতিন তার বক্তব্যে আরো বলেন, আমি যদি মোমবাতি মার্কায় নির্বাচিত হতে পারি এই পটিয়াকে সন্ত্রাস, চাঁদাবাজ, টেন্ডারবাজ, থানার দালালবাজ, ইভটিজিং, কিশোর গ্যাং তথা মাদক ব্যবসায়ীদের সম্পূর্ণরূপে নির্মূল করে সার্বিক উন্নয়নের মাধ্যমে একটি আালোকিত পটিয়া গড়ে তুলে বাংলাদেশে উদাহরণ সৃষ্টি করব ইনশাআল্লাহ।   পথসভায় অন্যান্যদের মধ্যে বক্তব্য রাখেন, আল্লামা অধ্যক্ষ আহম্মদ হোসেন আল-কাদেরী, দলের প্রেসিডিয়াম সদস্য এডভোকেট এম. আবু নাছের তালুকদার, প্রেসিডিয়াম সদস্য এম. সোলায়মান ফরিদ, প্রেসিডিয়াম সদস্য এডভোকেট জাহাঙ্গীর আলম চৌধুরী, আল্লামা আবুল আছাদ মোহাম্মদ জুবায়ের রেজভী, কেন্দ্রীয় নেতা মাওলানা এনাম রোজ কাদেরী।   দলের নেতৃবৃন্দের মধ্যে আরও উপস্থিত ছিলেন, যুবনেতা অধ্যাপক এমরান জাবেদ, ইব্রাহীম খলিল, ইসলামী ফ্রন্ট দক্ষিণ জেলা নেতা গাজী মাওলানা হাফেজ মঞ্জুরুল করিম রেফায়ী, হাজী মুহাম্মদ আলী হোসাইন, এম. বেলাল উদ্দীন আলমদার, মাষ্টার কমুর উদ্দীন, শাহজাদা নিজামুল করিম সুজন, জামাল রব্বানী, ইসলামী ফ্রন্ট পটিয়া উপজেলা নেতা আকতার হোসেন, পৌরসভা নেতা কাজী আবু বক্কর ছিদ্দিক, মাওলানা কুতুবউদ্দীন, মাওলানা মহিউদ্দীন আল-কাদেরী, যুবনেতা আইয়ুব আলী মিজান, বেলাল উদ্দীন চৌধরী, ছাত্রনেতা ডাক্তার আলমগীর, জুনাইদুল ইসলাম, আলী হোসাইন, মোজাম্মেল হোসাইন, আবু হানিফ প্রমূখ।  


keya