১০:১৫ এএম, ৯ মে ২০২১, রোববার | | ২৭ রমজান ১৪৪২




রাউজানে একই রাতে তিনটি মন্দির, দুইটি বাড়ী ও একটি দোকানে চুরি

০৪ মে ২০২১, ১০:৩২ এএম |


প্রদীপ শীল, রাউজানঃ রাউজানের ডাবুয়া ইউনিয়নে ও পৌর এলাকার ৫ নং ওয়ার্ডে একই রাতে তিনটি মন্দির, দুইটি বাড়ী ও একটি দোকানে চুরির ঘটনা ঘটেছে।  

গত ২ মে রবিবার দিবাগত রাতে এই চুরির ঘটনা গুলো ঘটে।  চুরি কবলিত এলাকা পরিদর্শন করে জানা যায়, ডাবুয়া জগন্নাথ হাটস্থ জগন্নাথ দেবালয় মন্দির ও পাশাপাশি শিব মন্দিরের ৪টি দানবাক্সের তালা ভেঙ্গে প্রায় অর্ধ লাখ টাকা চুরি করে নিয়ে যায় চোরের দল। 

জগন্নাথ দেবালয়ের সম্মুখে রফিক স্টোর নামে একটি মুদির দোকানের তালা ভেঙ্গে নগদ টাকা, দামী সিগেরেট ও দামী মুদির মালামাল লুট করে চোরের দল।  জগন্নাথ দেবালয় মন্দির থেকে মাত্র এক'শ গজ অদূরে লোকনাথ সেবাশ্রম নামে আরো একটি মন্দিরে হানা দেয় চোরের দল।  সেই মন্দিরের মুল ফটকের তালা ভেঙ্গে মন্দিরে প্রবেশ করে তারা। 

সেখানেও দানবাক্স ভেঙ্গে টাকা নিয়ে যায়।  একই রাতে চিকদাইর পুলিশ বিট সংলগ্ন বাচা মিয়ার দোকান এলাকার ওয়াজেদ আলী বলির বাড়ীতে দুই হত দরিদ্র পরিবারে হানা দেয় চোরের দল। 

স্থানীয় চায়ের দোকানি দিদারুল আল কালুর ঘরে ডুকে দুইটি মোবাইল ও নগদ ৬০০ টাকা নিয়ে যায়।  একই বাড়ীর মোহাম্মদ মুসলেম এর ঘরে ডুকে নগদ ৫৬০ টাকা নিয়ে যায়।  ডাবুয়ায় চুরির প্রসঙ্গে স্থানীয় ইউপি সদস্য মিঠু শীল জানান, একই রাতে এত গুলোর চুরির ঘটনা এই প্রথম ঘটেছে।  জগন্নাথ দেবালয় ও শিব মন্দিরের দানবাক্স গুলো বছরে এক বার খোলা হয়।  প্রতিটি দানবাক্সে ১৫ থেকে ২০ হাজার টাকা পাওয়া যায়। 

তিনি জানান,  আমি সকালে চুরির খবর পেয়ে পুলিশকে অবহিত করেছি।  পুলিশ ঘটনাস্থ পরিদর্শন করেছেন।  লোকনাথ সেবাশ্রমের সেবিকা সীমা দে ও শিখা দে জানান, রাতের কোন এক সময় মন্দির তালা ভেঙ্গে দানবাক্স চুরি করে নিয়ে যায়।  মুদির দোকানি রফিক সওদাগর জানান, নগদ ৮ হাজার টাকা, ৫ লিটার ওজনের ৬টি সয়াবিন তৈলের বোতল, প্রায় ৮ হাজার টাকার সিগেরেট নিয়ে যায় চোরের দল। 

চায়ের দোকানি দিদারুল আলম কালু জানান, পিছনে দরজা খুলে ঘরে প্রবেশ করে দুইটি মোবাইল ও পকেটে থাকা ৬০০ শত টাকা নিয়ে যায়।  মোহাম্মদ মুসলেম জানান স্থানীয় এক ব্যক্তি ১ হাজার টাকা জাকাত দিয়েছিল।  সেখান ৩৪০ টাকার সবজি বাজার করে বাকি টাকা পকেটে রেখেছি।  

রাতে ঘরে চোর ডুকে ৫৬০ টাকা নিয়ে যায়। 

এ প্রসঙ্গে রাউজান থানার ওসি আবদুল্লাহ আল হারণ জানান ডাবুয়ায় মন্দিরে চুরির খবর পেয়ে পুলিশ পাঠিয়েছি।  বাচা মিয়ার দোকান এলাকায় চুরির কোন ঘটনা শুনিনি।  এ ব্যাপরে কেউ কেন অভিযোগ করে নাই।  তবে আমরা চেষ্টা করছি জরিতদের সনাক্ত করার। 


keya