৯:৩০ পিএম, ২৩ জুলাই ২০২১, শুক্রবার | | ১৩ জ্বিলহজ্জ ১৪৪২




আমরা যদি নাই জাগি মা কেমনে সকাল হবে?

১০ জুন ২০২১, ১১:৩৬ পিএম |


এসএনএন২৪.কমঃএ কজন "গোলাপ শাওন" ও মানবিকতার অনন্য দৃষ্টান্তঃ 

সোস্যাল মিডিয়াতে আপনারা সবাই শুনেছেন, জেনেছেন, দেখেছেন পশ্চিম নানুপুর মনু পন্ডিত বাড়ির "গোলাপ শাওনের"- দুটি কিডনি ডেমেজ হয়ে যাওয়ার খবর।  সে খবরটি শুধু সবাইকে জানিয়ে দেওয়া হয়নি বরং তার চিকিৎসায় এগিয়ে আসার জন্য সবাইকে আহবান জানান।  

এই মানবিক কাজটি যাঁরা হাতে নিয়েছে, যাঁরা দীর্ঘ ১৫ দিন যাবৎ দেশ বিদেশের টাকা গুলো একজায়গায় গচ্ছিত রেখেছে, সার্বক্ষণিক সবার সাথে যোগাযোগ রক্ষা এমনকি যে যা সহযোগিতার প্রতিশ্রুতি দিয়েছেন তাদের ছবি সহকারে মিডিয়ায় প্রচার করেছে অন্যকে উৎসাহিত করার লক্ষ্যে- তাদেরকে ভুলি কি করে? তাঁরাইতো রিয়েল হিরো। 

বিশেষ করে প্রবাসী ভাইদের মধ্যে......

কাতার প্রবাসী আবুল কালাম, দুবাই প্রবাসী সাদ্দাম ও মুক্তিয়ার হোসেন যাদের হাত ধরে 

দেশে আরেক মানবিক ভাই তানিম উল হাসানের মাধ্যমে গঠন করা হয় "মানবিক টিম"।  তাদের হাত ধরেই চিকিৎসার জন্য উত্তোলিত টাকার ফান্ড বড় হতে থাকে।  যে যা পেরেছে সহযোগিতা করেছে।  তাদের সাথে এগিয়ে এসেছেন একঝাঁক তরুণের আরেক মানবিক সংগঠন " বন্ধু পরিষদ"।  মুটামুটি সবার অক্লান্ত পরিশ্রমের অনন্য দৃষ্টান্ত স্থাপন হলো আজ।  

"ইচ্ছে করলেই যে সব পারা যায় তা হলো সবার ঐকান্তিক প্রচেষ্টার ফসল ৪,৬০,০০০/-

( চার লক্ষ ষাট হাজার টাকার বিরাট একটি ফিগার) সংগ্রহ করতে সক্ষম হয়।  আর সে অর্থ ইচ্ছে করলেই দু-তিন জন গিয়ে শাওনের পরিবারে হস্তান্তর করতে পারতো।  কিন্তু তা না করে আরো একটি উজ্জ্বল দৃষ্টান্ত স্থাপন করেন তা হলো....

সারা বাংলাদেশে আলোড়ন সৃষ্টিকারী চট্টগ্রামের মানবিক পুলিশ জনাব শওকত হোসেন (সি,এম, পি) কে মানবিক ভাই ও প্রবাসী ভাইয়ের যোগাযোগের মাধ্যমে এই নানুপুরে নিয়ে এসে উনার মাধ্যমে (১৬০০০০+৩০০০০০=৪৬০০০০) টাকার বিশাল একটা ফিগার হস্তান্তর করে স্বচ্ছতার পরিচয় দিয়েছেন।  

মানবিক শওকত ভাই বলেন, উনার আসার মাধ্যমে গোলাপ শাওনের চিকিৎসা বাবদ আরো ৫ লক্ষ টাকার যে ঘাটতি, তা পূরণ করতে সক্ষম হবে।  ধারণকৃত ভিডিও দেখে শত শত লোক এগিয়ে আসবেন।  

অসংখ্য ধন্যবাদ জানাই নানুপুরবাসীর পক্ষ থেকে প্রিয় মানবিক পুলিশ শওকত ভাই (সি,এম,পি)কে।  আপনার আগমনে আমরা ভীষণ আনন্দিত ও কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করছি।  

" অল্প অল্প টাকা বড় একটি ফান্ডে বাঁচুক গোলাপের প্রাণ, আমরাই পারি, আমরাই দেখিয়েছি আজি তাহার প্রমাণ"।  

মুহাম্মদ শাহীদুল আলম 

লেখক ও শিক্ষক, 

নানুপুর মজহারুল উলুম গাউছিয়া ফাযিল (ডিগ্রি) মাদ্রাসা।