১২:৩৩ পিএম, ২৪ ফেব্রুয়ারি ২০২৪, শনিবার | | ১৪ শা'বান ১৪৪৫




শিক্ষার্থীদের মানবীয় গুণের অধিকারী হয়ে মানবিক বাংলাদেশ বিনির্মাণের আহ্বান

০৫ মার্চ ২০১৯, ০৩:৩২ পিএম | জাহিদ


এসএনএন২৪.কম : চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য প্রফেসর ড. ইফতেখার উদ্দিন চৌধুরী বলেছেন, নিজের মনের উপর নিয়ন্ত্রণ ক্ষমতা যার যত বেশি সে তত বেশি বলিষ্ঠ মানসিকতা ও মানবীয় গুণের অধিকারী। 

শিক্ষার্থীদের মানসিক সক্ষমতা বৃদ্ধিকল্পে আপন মনের উপর নিয়ন্ত্রণ দক্ষতা অজর্নে কৌশলী হতে হবে।  ৫ মার্চ চবি জীব বিজ্ঞান অনুষদ অডিটোরিয়ামে অনুষ্ঠিত মনোবিজ্ঞান বিভাগের নবীন বরণ ও বিদায় অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির ভাষণে তিনি এসব কথা বলেন।  অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন চবি জীব বিজ্ঞান অনুষদের ডিন প্রফেসর ড. মো. মাহবুুবুর রহমান। 

উপাচার্য সর্বাধুনিক ও শতভাগ নির্ভূল কঠিন ভর্তি পরীক্ষায় অবতীর্ণ হয়ে যোগ্যতার প্রমান দিয়ে বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তি হওয়ার সুযোগ পাওয়ায় নবীন শিক্ষার্থীদের আন্তরিক অভিনন্দন ও শুভেচ্ছা জানান।  তিনি বলেন, মনোবিজ্ঞান বিভাগ চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের অত্যন্ত গৌরবোজ্জ্বল একটি বিভাগ। 

এ বিভাগের জ্ঞান-গবেষণায় সমৃদ্ধ গুণী শিক্ষকবৃন্দ অবিরাম জ্ঞান সৃজন এবং জ্ঞান উৎপাদন করে বিভাগ তথা বিশ্ববিদ্যালয়কে অধিকতর সমৃদ্ধ করছে।  উপাচার্য বলেন, নবীন শিক্ষার্থীরা বিভাগের গুণী শিক্ষকদের সৃজিত জ্ঞান আহরণের মাধ্যমে একদিকে নিজেদের জ্ঞানভান্ডার সমৃদ্ধ করবে অন্যদিকে মানসিক দৃঢ়তা অর্জনের কৌশল রপ্ত করে মানবীয় গুণের অধিকারী হয়ে একটি উন্নত সমৃদ্ধ মানবিক বাংলাদেশ বিনির্মাণে ভূমিকা রাখবে এটাই প্রত্যাশিত।  উপাচার্য বিদায়ীদের বিশ্ববিদ্যালয় থেকে অর্জিত জ্ঞান জীবনের প্রতিটি ক্ষেত্রে কাজে লাগিয়ে নিজেদের সুউচ্চ আসনে অধিষ্ঠিত করার পাশাপাশি নিজ নিজ অবস্থান থেকে দেশের উন্নয়ন-অগ্রগতিতে কাঙ্খিত ভূমিকা রাখার আহবান জানান।  উপাচার্যকে বিভাগের পক্ষ থেকে সম্মাননা স্মারক প্রদান করা হয়।  উপাচার্য বিদায়ী শিক্ষার্থীদেরকে বিভাগের পক্ষ থেকে সম্মাননা ক্রেস্ট প্রদান করেন।  

চবি মনোবিজ্ঞান বিভাগের সভাপতি জনাব লাইলুন নাহারের সভাপতিত্বে এবং বিভাগের প্রভাষক জনাব উম্মে কুলসমা রশিদ-এর পরিচালনায় অনুষ্ঠানে অন্যান্যের মধ্যে বক্তব্য রাখেন উক্ত বিভাগের প্রতিষ্ঠাকালীন সভাপতি প্রফেসর ড. আনিসুল ইসলাম।  অনুষ্ঠানে বিভাগের সম্মানিত শিক্ষকবৃন্দ, কর্মকর্তা-কর্মচারীবৃন্দ এবং বিপুল সংখ্যক শিক্ষার্থী উপস্থিত ছিলেন।  পরে বিভাগের শিক্ষার্থীদের পরিবেশনায় অনুষ্ঠিত হয় মনোজ্ঞ সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান। 


keya